বিজ্ঞাপন

হায়দ্রাবাদকে হারিয়ে ফাইনালে দিল্লি

November 9, 2020 | 12:17 am

স্পোর্টস ডেস্ক

নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো আইপিএল'র ফাইনালে জায়গা করে নিল দিল্লি ক্যাপিটালস। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদকে ১৭ রানে হারিয়ে ফাইনালে জায়গা করে নেয় দিল্লি ক্যাপিটালস। এর আগে প্রথম কোয়ালিফায়ারে মুম্বাইয়ের কাছে হারলেও দিল্লির সামনে সুযোগ ছিল দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার জিতে ফাইনাল খেলার সুযোগ করে নেওয়ার। আর সেটাই করে দেখাল শ্রেয়াস আইয়ারের দল।

বিজ্ঞাপন

আগে ব্যাট করে দিল্লি নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৮৯ রান। জাবাবে ব্যাট করতে নেমে কেন উইলিয়ামসনের দুর্দান্ত লড়াইয়ের পরেও নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭২ রানে থামে হায়দ্রাবাদ। আর তাতেই ১৭ রানের জয় তুলে নিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে দিল্লি ক্যাপিটালস।

টস জিতে আগে ব্যাট করতে নামা দিল্লিকে দুর্দান্ত শুরু এনে দেয় দুই ওপেনার মার্কাস স্টয়নিস এবং শেখর ধাওয়ান। এই দুই ব্যাটসম্যানের ৮৬ রানের জুটি ভাঙে ইনিংসের ৯ম ওভারে। রশিদ খানের বলে ২৭ বলে ৩৮ রান করা স্টয়নিস বোল্ড হয়ে ফিরলে ভাঙে উদ্বোধনী জুটি। তবে এক প্রান্তে ঠিকই খুঁড়ি গড়ে বসেন শেখর ধাওয়ান।

বিজ্ঞাপন

দ্বিতীয় উইকেটে শ্রেয়াস আইয়ারের সঙ্গে ৪০ রানের জুটি গড়েন ধাওয়ান, এর ভেতরেই তুলে নেন নিজের অর্ধশতক। সেই সঙ্গে এবারের আইপিএল'র দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে পূর্ণ করেন ৬০০ রান। এবারের আইপিএলে দুটি শতক এবং ৪টি অর্ধশতকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও তিনিই।

শেখর ধাওয়ানের সঙ্গে ৪০ রানের জুটি গড়ে ব্যক্তিগত ২১ রানে এবং দলীয় ১৩৬ রানে ফেরেন শ্রেয়াস আইয়ার, এরপর উইকেটে আসেন শিমরন হেতমায়ার। তাঁর সঙ্গে ধাওয়ান গড়েন ৫২ রানের জুটি। ইনিংসের ১৯তম ওভারে ৫০ বলে ৭৮ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলে আউট হন ধাওয়ান। শেষ দিকে হেতমায়ারের ২২ বলে ঝড়ো ৪২ রানের ইনিংসে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ১৮৯ রান তোলে দিল্লি ক্যাপিটালস।

বিজ্ঞাপন

১৯০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারকে হারায় হায়দ্রাবাদ। দ্বিতীয় ওভারে হায়দ্রাবাদের স্কোরবোর্ডে তখন রান সংখ্যা মাত্র ১২, তখনই রাবাডার শিকার হয়ে মাত্র ২ রান করে ফেরেন ওয়ার্নার। এরপর মনিশ পান্ডের সঙ্গে ৩১ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক বিপর্যয় কিছুটা সামাল দেন প্রিয়ম গার্গ। তবে ৫ম ওভারে ব্যক্তিগত ১৭ রানে স্টয়নিসের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন প্রিয়ম। এর এক বল পর ২১ রান করা মনিশ পান্ডেও স্টয়নিসের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরলে চাপে পড়ে হায়দ্রাবাদ।

মাত্র ৪৪ রানে ৩ উইকেট হারানো হায়দ্রাবাদের হাল ধরেন কেন উইলিয়ামসন। তবে তাকে কেউই সমর্থন দিতে পারেনি। একে একে জেসন হোল্ডার (১১), আব্দুল সামাদ (৩৩) , রশিদ খান (১১) ফেরেন। এর ভেতর আব্দুল সামাদের সঙ্গে ৫৭ রানের জুটি গড়ে দলীয় ১৪৭ এবং ব্যক্তিগত ৬৭ রানে কেন উইলিয়ামসনের উইকেট হারায় হায়দ্রাবাদ। আর তাতেই জয়ের আশা নিভে যায় দলটির।

বিজ্ঞাপন

শেষ দিকে আর কেউই তেমন রান করতে না পারায় নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৭২ রানে থামে হায়দ্রাবাদের ইনিংস। তাতেই ১৭ রানের জয় পায় দিল্লি। দিল্লির হয়ে ২৯ রানে ৪ উইকেট নেন কাগিসো রাবাদা আর ২৬ রানে ৩টি উইকেট নেন মার্কাস স্টয়নিস।

আগামী ১০ নভেম্বর ফাইনালে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে লড়বে দিল্লি ক্যাপিটলাস। বাংলাদেশের দর্শকরা আইপিএল-এর সব ম্যাচ সরাসরি দেখতে পারবেন জিটিভিতে। এছাড়া কোনো ধরনের সাবস্ক্রিপশন ফি বা চার্জ ছাড়াই অনলাইনে দেখা যাবে র‍্যাবিটহোলবিডি'র ওয়েবসাইট www.rabbitholebd.com-এ।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন