বিজ্ঞাপন

‘কোনো দেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধের সিদ্ধান্ত আপাতত নেই’

January 3, 2021 | 6:24 pm

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা: কোনো দেশের সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধের কোনো সিদ্ধান্ত আপাতত নেই বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমানচলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। তিনি বলেছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিমান যোগাযোগ অব্যাহত থাকবে। আর যেসব দেশ করোনার কারণে বিমানচলাচল সাময়িক বন্ধ রেখেছে, তারা তাদের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফের বিমান চলাচল শুরু হবে।

বিজ্ঞাপন

রোববার (৩ জানুয়ারি) রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের সদর দফতর পর্যটন ভবনের রুফটপে রেস্টুরেন্ট উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মাহবুব আলী বলেন, ‘গ্রাহক সেবায় বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন একটি ব্র্যান্ডের নাম। এই সংস্থার খাবারের গুণগত মান অত্যন্ত উন্নত। তবে বর্তমান সময় প্রতিযোগিতার যুগ। প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের সেবার মান আরও বাড়িয়ে গ্রাহকদের আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। সেবার মান বৃদ্ধি করে গ্রাহক সন্তুষ্টি অর্জনের কোনো বিকল্প নেই।’

বিজ্ঞাপন

বিমানচলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর সারাবিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল বীরত্বের গৌরবময় ইতিহাসের অধিকারী এই বাংলাদেশ। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পরে দীর্ঘ ২১ বছরের অপশাসনের কারণে বিশ্বের দৃষ্টি বাংলাদেশ থেকে সরে গিয়েছিল। তখন দেশের অন্যান্য খাতের মতো পর্যটন শিল্পেরও উন্নয়ন ও বিকাশ হয়নি। বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দায়িত্ব গ্রহণের পর বাংলাদেশের অন্যান্য খাতের মতো পর্যটন শিল্পও নির্দিষ্ট উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড ও বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন পর্যটন উন্নয়নে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। এসব উদ্যোগ বাস্তবায়নের মাধ্যমে ভবিষ্যতে বাংলাদেশ হয়ে উঠবে বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন গন্তব্য।’

মাহবুব আলী বলেন, ‘২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে পর্যটন শিল্পকে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। সরকারি ও বেসরকারি সকল পর্যটন অংশীজনের সমন্বয় টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রায় পর্যটন শিল্পের জন্য নির্ধারিত লক্ষ্যসমূহ নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই আমরা অর্জন করব। এ লক্ষ্যে আমাদের সবাইকে যার যার নিজ জায়গা থেকে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।’

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান রাম চন্দ্র দাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মহিবুল হক ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাবেদ আহমেদ।

উল্লেখ্য, পর্যটন ভবনের খোলা ছাদে ছয় হাজার ৬০০ বর্গফুট আয়তনের ১৫০ আসনবিশিষ্ট রেস্টুরেন্টটি অত্যাধুনিক সাজে সজ্জিত। এ রেস্টুরেন্টে সুলভ মূল্যে দেশি/বিদেশি খাবারের ব্রেকফাস্ট, লাঞ্চ, ইভিনিং স্নাক্স আইটেম/ ফাস্টফুড ও ডিনারের সুব্যবস্থা রয়েছে। বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের মালিকানাধীন এই রেস্টুরেন্টে গ্রাহকদের জন্য সার্বক্ষণিক লিফট ও গাড়ির বেইজমেন্ট পার্কিংয়ের সুবিধা রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

সারাবাংলা/জেআর/পিটিএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন