বৃহস্পতিবার ২১ মার্চ, ২০১৯ ইং , ৭ চৈত্র, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৩ রজব, ১৪৪০ হিজরী

বিজ্ঞাপন

দুই লাখ টাকার বিনিময়ে ছেলে হত্যার তথ্য গোপন বাবার

মার্চ ১৪, ২০১৯ | ১২:২৮ পূর্বাহ্ণ

।। সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট।।

ঢাকা: ২ লাখ টাকার বিনিময়ে ছেলে হত্যার তথ্য গোপন করে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে বলে নাটক সাজিয়েছে নাজিম উদ্দিন নামের এক বাবা। র‌্যাবের অনুসন্ধানে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে। একই সাথে গ্রেফতার করা হয়েছে ২ হত্যাকারী আল আমিন (৩৮) ও শামীমকে (৩৫)।

বুধবার (১৩ মার্চ) বিকেল সাড়ে ৫টায় কারওয়ান বাজার মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-৩ এর সিও (কমান্ডিং অফিসার) লে. কর্ণেল এমরানুল হাসান রাজধানীর খিলগাঁও ইদারকান্দি গ্রামের চাঞ্চল্যকর রুবেল হত্যার এই রহস্যময় তথ্য জানান।

সিও বলেন, ভিকটিম রুবেল বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা গেছে বলে প্রাথমিকভাবে রুবেলের বাবা দাবি করে ঘটনার দিনই বাদী হয়ে খিলগাঁও থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা করেন। মামলার প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্টে মরদেহের মাথায় আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়। এটা দেখে সন্দেহ হয় র‌্যাবের। এরপর রুবেলের বাবাকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আনা হয়। পরে তিনি ভয় পেয়ে সত্য ঘটনা খুলে বলেন। তিনি বলেন, তার ছেলে রুবেল বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যায়নি। তাকে প্রকৃতপক্ষে হত্যা করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

রুবেলের বাবার বরাত দিয়ে র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, গত ১১ মার্চ রাতে তাদের দূর সম্পর্কের আত্মীয় শামীম ও আল আমিনের নির্মাণাধীন ঘরে চুরি করতে যায় রুবেল। এমন সময় টের পেয়ে শামীম ও আল আমিন রুবেলের মাথায় রড দিয়ে আঘাত করে। তখনই মারা যায় রুবেল। রুবেল মারা যাবার পর, ভয় পেয়ে রুবেলের বাবা নাজিম উদ্দিনকে ডেকে পাঠান ২ ভাই শামীম ও আল আমিন। ওই দুইভাই বাবাকে বলেন, নেশাখোর ছেলে মরে গেছে। আমরা বুঝতে পারিনি। এখন থানা পুলিশ করে কি লাভ হবে। তার চেয়ে বরং দুই লাখ টাকা পাবি এতে তোমার অনেক উপকার হবে। পরে ২ লাখ টাকা পাওয়ার লোভে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যাবার নাটক সাজায় তারা। টাকার বিনিময়ে পুত্র হত্যার তথ্য গোপন করতে রাজি হয় রুবেলের বাবা।

এমরানুল হাসান আরও বলেন, ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে, র‌্যাব আল আমিন ও শামীমকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে, তারা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।

অন্যদিকে ভিকটিম রুবেল সম্পর্কে র‌্যাবকে তার বাবা জানিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরে রুবেল মাদকসেবী ছিল। নেশার টাকা যোগাড় করার জন্য সে বিভিন্ন সময় চুরি করত। এর আগেও চুরির ঘটনায় তার গ্রামে বেশ কয়েকবার বিচার-সালিশ হয়েছে। ঘটনার দিন রাতে রুবেল চুরি করার উদ্দেশ্যেই দুই ভাইয়ের ঘরে ঢোকার চেষ্টা করে। ঘরের দরজা খুলতেই দুই ভাই টের পেয়ে যায়। এরপর রুবেলের সাথে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে লোহার রড দিয়ে রুবেলের মাথায় আঘাত করে শামীম। এতেই তার মৃত্যু হয়।

সারাবাংলা/ইউজে/জেএএম

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন