বিজ্ঞাপন

জার্মানিতে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার প্রতিবাদে আপত্তি

June 3, 2020 | 3:39 pm

স্পোর্টস ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্র পুলিশের হাতে জর্জ ফ্লয়েড নামক এক কৃষ্ণাঙ্গ নিরাপত্তাকর্মীর নির্মম হত্যাতে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে প্রতিবাদের আগুন ছড়িয়ে পড়েছে। এই করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যেও রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছে মার্কিনীরা। প্রতিবাদের উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছে ক্রীড়াঙ্গনেও। ফুটবল, ক্রিকেট, টেনিস, বাস্কেটবল, বক্সিংসহ প্রায় সব জগতের তারকারা প্রতিবাদে যোগ দিয়েছেন। জার্মান বুন্দেসলিগায় বেশ কয়েকজন ফুটবলার মাঠেই ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদ করেছেন। বিষয়টি পছন্দ হচ্ছে না জার্মান ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফবি)।

বিজ্ঞাপন

মাঠে ফ্লয়েড হত্যার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন যারা তাদের বিপক্ষে তদন্ত করবে ডিএফবি। সংস্থাটির চেয়ারম্যান অ্যান্টন ন্যাকরেইনার বলেছেন, 'ডিএফবির নিয়ন্ত্রক কমিটি আগামী কয়েকদিনে এই ব্যাপারটা পরখ করে দেখবে এবং বিষয়টি পরীক্ষা করবে।' ডিএফবির নিয়মে এমন প্রতিবাদ নিষিদ্ধ।

উল্লেখ্য, গত সোমবার আটকের পর পুলিশের নির্যাতনে মারা যান জর্জ ফ্লয়েড। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া এক ভিডিওতে দেখা যায়, ডেরেক শভিন নামের যুক্তরাষ্ট্রের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা সড়কে হাঁটু দিয়ে ঘাড় চেপে ধরে ফ্লয়েডকে। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত 'শ্বাস নিতে পারছি না' বলে চিৎকার করছিলেন ফ্লয়েড। অনেকে বলেছেন. কৃষ্ণাঙ্গ না হলে এমন নির্মম মৃত্যু হতো না ফ্লয়েডের। জানা গেছে ছাত্র জীবনে দুর্দান্ত ফুটবল ও বাস্কেটবল খেলোয়াড় ছিলেন ফ্লয়েড। তার মৃত্যুতে ক্রীড়াঙ্গন ফুঁসে উঠেছে হয়তো সেই কারণেই!

বিজ্ঞাপন

রোববার ক্যারিয়ারের প্রথম হ্যাটট্রিক পেয়েছিলেন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের জাডোন সানচো। প্রথম গোলের পর টি-শার্ট খুলে ভেতরে লেখা বার্তা দেখান সানচো যাতে লেখা ছিল 'ফ্লয়েড হত্যার বিচার চাই।' বুন্দেসলিগায় আশরাফ হাকিমি, মার্কাস থুরামও মাঠে প্রতিবাদ করেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের টেনিস কিংবদন্তি সেরেনা উইলিয়ামস, ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট তারকা ক্রিস গেইল, ড্যারেন স্যামিরা কড়া প্রতিবাদ বর্তা দিয়েছেন।

স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনা ফ্লয়েড হত্যার প্রতিবাদে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়েছে। ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল মাঠে ফ্লয়েড হত্যার অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছে। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের দুই তারকা ফুটবলার পল পগবা ও মার্কাস রাশফোর্ডও প্রতিবাদ করেছেন। আর সেই সঙ্গে যোগ দেন স্প্যানিশ ক্লাবগুলোর সকল ফুটবলাররা। মঙ্গলবার রাতে নিজেদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কালো ছবি পোস্ট করে হ্যাশট্যাগে লেখেন কৃষ্ণাঙ্গদের জীবনও গুরুত্বপূর্ণ।

সারাবাংলা/এসএইচএস/এসএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন