বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানে টিএলপির সঙ্গে সংঘর্ষে ৪ পুলিশ সদস্য নিহত

October 27, 2021 | 8:47 pm

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পাকিস্তানে ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাক দেওয়া নিষিদ্ধঘোষিত উগ্র ডানপন্থী দল তেহরিক-ই-লাব্বাইকের (টিএলপি) সঙ্গে সংঘর্ষে কমপক্ষে ৪ পুলিশ সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। এতে আহত হয়েছেন আরও কয়েকশ পুলিশ ও বিক্ষোভকারী।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (২৭ অক্টোবর) পাকিস্তানের লাহোরে বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করেছিল টিএলপি। বিক্ষোভটি সহিংস রূপ নেওয়ায় এতে গুলি চালায় পুলিশ। টিএলপির কর্মীরাও পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। পরে উভয়পক্ষের সংঘর্ষ আরও তীব্র হয়।

পাঞ্জাব প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী উসমান বুজদার টুইটারে জানান, টিএলপি কর্মীদের গুলিতে ৪ পুলিশ সদস্য ‘শহিদ’ হয়েছেন। এছাড়া আরও ২৫৩ জন সহিংসতায় আহত হয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এদিকে টিএলপিও দাবি করেছে, মিছিলে সংঘর্ষে তাদের একাধিক সদস্য আহত হয়েছেন।

পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, পাঞ্জাবে টিএলপির সহিংসতা দমনে ইতিমধ্যে আধাসামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘ তারা পাঞ্জাবে ৬০ দিন থাকবে। পাঞ্জাবের যে কোনো জায়গায় যাওয়ার ক্ষমতা আমি তাদের দিয়েছি। আমি এখনও টিএলপি সতর্ক করে দিয়ে বলছি, পিছু হটো।’

বিজ্ঞাপন

পাঞ্জাব পুলিশের মুখপাত্র বলেন, ‘টিএলপি কর্মীরা এসএমজি, একে-৪৭ ও পিস্তলের মতো আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করছে। তাদের গুলিতে কয়েকজন কর্মকর্তা প্রাণ হারিয়েছেন।’

গত বছর ফ্রান্সে মহানবী (সা.)-এর ব্যঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশের জেরে পাকিস্তানে নিযুক্ত ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়ে আসছেন টিএলপি নেতা আল্লামা রিজভী। তিনি দেশটি থেকে পণ্য আমদানি নিষিদ্ধেরও দাবি জানান। এসব দাবিতে একের পর আল্টিমেটাম দিয়ে আসছে টিএলপি। তবে পাকিস্তান সরকার এসব দাবি প্রথমে মেনে নিয়ে সময় চাইলেও পরে প্রত্যাখ্যান করে টিএলপিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।

বিজ্ঞাপন

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের নভেম্বরে এসব দাবিতে আন্দোলন করে টিএলপি। সে সময় দাবিগুলো পার্লামেন্টে আলোচনার জন্য তিন মাস সময় নেয় সরকার। তবে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি আবারও টিএলপি দাবি নিয়ে সোচ্চার হলে সরকার জানায়, দাবিগুলো এই মুহূর্তে মানা সম্ভব নয়। সেসময় নতুন সময়সীমা ২০ এপ্রিল ঠিক করা হয়।

তবে ২০ এপ্রিলের আগেই দাবিগুলো নিয়ে ফের আন্দোলন শুরু করে টিএলপি। এর জেরে দলটির প্রধান সাদ রিজভীকে গ্রেফতার করে সরকার। তার গ্রেফতারের প্রতিবাদে দেশটির প্রধান প্রধান শহরে সহিংস বিক্ষোভ শুরু করেন কর্মী-সমর্থকরা। সেসময় সহিংসতায় একাধিক পুলিশ সদস্য প্রাণ হারান।

বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি তাদের দাবি নিয়ে আবারও মাঠে নেমেছে টিএলপি। বুধবার তাদের বিক্ষোভ মিছিল সহিংসতায় রূপ নেওয়ায় প্রাণহানির ঘটনা ঘটলো। পাঞ্জাব মুখ্যমন্ত্রী টুইটারে জানিয়েছেন, টিএলপির বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

সারাবাংলা/আইই

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন