বিজ্ঞাপন

জাপানি নাগরিক হত্যা : ইছহাকের খালাসের রায় স্থগিত চেয়ে আবেদন

September 22, 2022 | 2:09 pm

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

ঢাকা : জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও হত্যা মামলায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জামাআতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য ইছাহাক আলীকে খালাস দিয়ে হাইকোর্টের রায় স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেছে রাষ্ট্রপক্ষ।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদন করা হয়। অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ (এস কে) মোরশেদ সাংবাদিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন।

সাত বছর আগে রংপুরে জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও হত্যা মামলায় গতকাল (২১ সেপ্টেম্বর) নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) চার জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল রেখে রায় দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত অপর একজনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স ও আসামিদের আপিল ও জেল আপিলের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান ও বিচারপতি এস এম মাসুদ হোসেন দোলনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণা করেন।

এর আগে গত সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) এ বিষয়ে বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমান ও বিচারপতি এস এম মাসুদ হোসেন দোলনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ রায় ঘোষণার জন্য আজকের দিন নির্ধারণ করেন।

বিজ্ঞাপন

বৃহস্পতিবার আদালতে আসামিপক্ষে ছিলেন আইনজীবী আহসান উল্লাহ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরসেদ।

এর আগে গত ৪ সেপ্টেম্বর পাঁচ জঙ্গির মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য ডেথ রেফারেন্স ও আসামিদের আপিল শুনানি শুরু হয়।

বিজ্ঞাপন

২০১৭ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি রংপুরের বিশেষ জজ আদালতের বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকার জেএমবির পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ড দেন।

তারা হলেন- জেএমবির পীরগাছার আঞ্চলিক কমান্ডার উপজেলার পশুয়া টাঙ্গাইলপাড়ার মাসুদ রানা ওরফে মামুন ওরফে মন্ত্রী, ইছাহাক আলী, বগুড়ার গাবতলী এলাকার লিটন মিয়া ওরফে রফিক, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী কুড়িগ্রামের রাজারহাটের মকর রাজমাল্লী এলাকার আহসান উল্লাহ আনসারী ওরফে বিপ্লব এবং গাইবান্ধার সাঘাটার হলদিয়ার চর এলাকার সাখাওয়াত হোসেন। দণ্ডপ্রাপ্ত বিপ্লব পলাতক রয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এ ছাড়া হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় পীরগাছার কালীগঞ্জ বাজারের আবু সাঈদ (২৮) খালাস পান।

পরে মৃত্যুদণ্ডের ডেথ রেফারেন্স (মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদেনের জন্য নথিপত্র) হাইকোর্টে পাঠানো হয়। একইসঙ্গে আসামিদের পক্ষে আপিল ও জেল আপিল করা হয়।

চার্জশিটভুক্ত আট আসামির মধ্যে অন্য দুজন বন্দুকযুদ্ধে নিহত হওয়ায় মামলার তাদের নাম বাদ দিয়ে রায় ঘোষিত হয়। তাদের মধ্যে পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জের গজপুরি এলাকার নজরুল ইসলাম ওরফে হাসান ওরফে বাইক হাসান ২০১৬ সালে অভিযোগ গঠনের আগে ১ আগস্ট রাজশাহীতে এবং কুড়িগ্রামের রাজারহাটের চর বিদ্যানন্দ এলাকার সাদ্দাম হোসেন ওরফে রাহুল ওরফে চঞ্চল ওরফে সবুজ ওরফে রবি অভিযোগ গঠনের পরে ঢাকার মোহাম্মদপুর বেড়িবাঁধে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়েছেন।

২০১৫ সালের ৩ অক্টোবর সকালে জাপানি নাগরিক হোশি কুনিওকে কাউনিয়া উপজেলার আলুটারি এলাকায় গুলি করে হত্যা করা হয়। এরপর হত্যার অভিযোগে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জেএমবির কয়েক সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ও যুক্তিতর্ক শেষে রংপুরের বিশেষ জজ আদালত জেএমবির পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন।

সারাবাংলা/কেআইএফ/ইআ

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন