বিজ্ঞাপন

শেষ বিকেলের স্বস্তিতে দ্বিতীয় দিন শেষ বাংলাদেশের

May 16, 2022 | 6:23 pm

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট

চট্টগ্রাম টেস্টের দ্বিতীয় দিনটা মন্দ কাটল না বাংলাদেশের। ১৩৯ রান খরচ করে আজ শ্রীলংকার শেষ ৬ উইকেট তুলে নেওয়ার পর বিনা উইকেটে ৭৬ রান তুলে আজ দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করেছে মুমিনুল হকের দল। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে ৩২১ রানে পিছিয়ে আছে বাংলাদেশ। হাতে পুরো দশ উইকেট।

বিজ্ঞাপন

দিনের শেষ বিকেলে উইকেট হারানোর ‘বদঅভ্যাস’টা ইদানিং নিয়মিতই ঘটছিল বাংলাদেশের ক্ষেত্রে। তামিম ইকবাল, মাহমুদুল হাসান জয় আজ শেষ বিকেলে বিপদ হতে দেননি। বরাবরের মতো এবারও চট্টগ্রামের উইকেট বেশ ব্যাটিংবান্ধব। দ্বিতীয় দিনেও উইকেট ভাঙার কোনও লক্ষণ নেই। স্পিনার, পেসার কোনও বোলাররাই সুবিধা পাচ্ছেন না। এমন উইকেটে মনোযোগে চিড় ধরেনি তামিম-মাহমুদুলের।

শুরু থেকেই দারুণ নিয়ন্ত্রিত ব্যাটিং করা দুজন ওপেনিং জুটিতে এখন পর্যন্ত ১৯ ওভার খেলে রান তুলেছেন ৭৬। আজ দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ হওয়ার আগে তামিম ৩৫ রান করেছেন ৫২ বল খেলে। তার ইনিংসে চারের মার ৪টি। মাহমুুদুল ৬৬ বল খেলে ৫টি চারের সাহায্যে রান করেছেন ৩১।

বিজ্ঞাপন

সোমবার (১৬ মে) চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এর আগের গল্পটা বাংলাদেশি দুই স্পিনার নাঈম হাসান, সাকিব আল হাসান আর শ্রীলংকান তারকা অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের। ৪ উইকেটে ২৫৮ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করা শ্রীলংকা আজ সকালে যেভাবে খেলছিল তাতে মনে হচ্ছিল বড় রানেই বুঝি চাপা পড়তে যাচ্ছে বাংলাদেশ। অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস, দিনেশ চান্ডিমাল সকালটা কাটিয়েছেন দারুণভাবে।

কিন্তু পানি পানের বিরতির খানিক বাদেই লংকানদের লাগাম টেনে ধরেন সাকিব আল হাসান, নাঈম হাসান। ফিল্ডিং সাজিয়ে দিনেশ চান্ডিমালকে রিভার্স সুইপে প্রলুব্ধ করেছিলেন নাঈম। লংকান তারকাও যেন সেই ফাঁদেই পা দিলেন! রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে ফিরেছেন ৬৬ রানের মাথায়। শ্রীলংকার রান তখন ৩১৯।

বিজ্ঞাপন

চার বলের ব্যবধানে সরাসরি নিরোশান ডিকওয়েলার স্টাম্প ভেঙে দেন নাঈম। নাঈমের ঝুলিয়ে দেওয়া বলটি পেছনে পা নিয়ে খেলতে চেয়েছিলেন ডিকওয়েলা। কিন্তু ব্যাটে-বলে করতে পারেননি। বল সরাসরি আঘাত হানে অফস্ট্যাম্পে। খানিক বাদে  সাকিব আল হাসানের ঘূর্ণি বিষে মিলেছে জোড়া সাফল্য।

শেষ বিকেলের স্বস্তিতে দ্বিতীয় দিন শেষ বাংলাদেশের

বিজ্ঞাপন

রমেশ মেন্ডিস ও লাসিথ এম্বুলদেনিয়াকে পরপর দুই বলে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভবনা জাগিয়েছিলেন সাকিব। হ্যাটট্রিক অবশ্য হয়নি, তবে শ্রীলংকার কোমড় ভেঙে যায় ঠিকই। মাত্র ৯ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারানো শ্রীলংকা অষ্টম উইকেট হারায় ৩২৮ রানের মাথায়। মনে হচ্ছিল সাড়ে তিশর আগেই হয়তো গুটিয়ে যাবে শ্রীলংকা।

কিন্তু কে জানত বিশ্ব ফার্নান্দো ও আসিথা ফার্নান্দো ভিন্ন কিছু ভেবে রেখেছিলেন! শ্রীলংকার এই শেষ দুই ব্যাটার উইকেটে গিয়ে রীতিমতো ‘কচ্ছপ কামড়’ দিতে চেয়েছেন। ওদিকে ম্যাথুস অবিচলই ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

নবম উইকেটে ম্যাথুসের সঙ্গে ১৪৭ বলের জুটি গড়েন বিশ্ব। যাতে বিশ্বর অবদান ৭৭ বলে ১৭ রান। শেষ ব্যাটার আসিথাও খেলেছেন ২৭ বল। এসবে ডাবল সেঞ্চুরির একদম কাছাকাছি পৌঁছেন ম্যাথুস। কিন্তু ১৯৯ রানে দাঁড়িয়ে নাঈম হাসানের বলে সাকিবের হাতে ক্যাচ তুলে দেন শ্রীলংকান তারকা। তার ৩৯৭ বলের ইনিংসটিতে চারের মার ১৯টি, ছক্কা ১টি।

বাংলাদেশের হয়ে ১০৫ রান খরচায় ক্যারিয়ার সেরা ছয় উইকেট নেন নাঈম হাসান। ৬০ রানে তিন উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

সারাবাংলা/এসএইচএস

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন